বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি

বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি ঃ এইচএসসি শিক্ষার্থীরা তোমাদের বাংলা ২য়পত্রে ইলেকট্রনিক মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠিপত্র আসে। তাই নিচে কিভাবে এটি লিখতে হয় এবং কয়েকটি নমুনা নিচে দিলাম।

ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি লিখার নিয়ম

১. পদ্মা সেতু দেখতে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে বন্ধুকে ই-মেইল করো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতি দেখতে যাওয়া প্রসঙ্গে ।

Text: 

প্রিয় মিতুল, 

আশা করি, ভালো আছ। আমিও ভালো আছি। তোমাকে একটি বিষয় অবহিত করার জন্য আজ লিখছি। তুমি জানো, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত হয়েছে এই সেতু। এ সেতুটি দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাথে ঢাকার যোগাযোগ সহজ করেছে। সেতুর কারণে অর্থনৈতিকভাবেও বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। অনেক চ্যালেঞ্জ নিয়ে নির্মিত এ সেতু আমাদের জন্য অনেক গৌরবের । তাই আমরা বন্ধুরা মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, পদ্মা সেতু স্বচক্ষে দেখতে যাব। তুমিও আমাদের সাথে আমন্ত্রিত। আশা করি এ ব্যাপারে আমাদের সাথে যোগাযোগ করবে। 

রাজিব আহমেদ 

২. করোনা ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ নেওয়ার অনুভূতি জানিয়ে বন্ধুকে একটি বৈদ্যুতিন চিঠি লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:করোনা ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ।

Text: 

মারিয়া, 

আজ আমি করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষার বুস্টার ডোজের টিকা নিয়েছি। এক বছর আগে টিকা নেওয়ার জন্য অনলাইনে নিবন্ধন করি। ধারাবাহিকভাবে ১ম ও ২য় ডোজের পর গতকাল মুঠোফোনে বুস্টার ডোজ নেওয়ার খুদেবার্তা আসে। জানতে পারি আজ আমাকে টিকা নিতে কেন্দ্রে যেতে হবে। আমার কেন্দ্র ছিলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। সকালে বাবাকে নিয়ে আমি টিকা নেওয়ার জন্য কেন্দ্রে যাই। টিকা নেওয়া শেষে আমরা বাসায় চলে আসি। হালকা একটু মাথাব্যাথা ছাড়া অন্য কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি। হালকা জ্বর, মাথাব্যাথা কিংবা শরীরে ব্যাথা হওয়া স্বাভাবিক লক্ষ্মণ । তুইও টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করে নিস। সাবধানে থাকিস। 

Salma

৩. করোনা টেস্টের পজিটিভ রিপোর্টের কথা জানিয়ে বন্ধুকে একটি বৈদ্যুতিন চিঠি লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:করোনা টেস্ট রিপোর্ট । 

Text: 

প্রিয় জাহিদ, 

ভালো আছিস নিশ্চয়ই । বেশ কিছুদিন জ্বর, কাশি আর শ্বাসকষ্টে ভোগার কারণে বাবা ও আপুর পরামর্শে তিন দিন আগে করোনা টেস্ট করাই। গতকাল টেস্ট রিপোর্টে করোনা পজিটিভ এসেছে। ইতোমধ্যে আইসোলেশনে আছি ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিচ্ছি। আমার জন্য দোয়া করিস যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠি.  

আহাদ 

৪. করোনার এ সময়ে হাত ধোয়ার বিষয়ে সচেতন করে বন্ধুকে একটি ই-মেইল লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:হাত ধোয়ার বিষয়ে সচেতনতা। 

Text: 

প্রিয় অনিক, 

কেমন আছিস? করোনা সম্পর্কে ইতোমধ্যে অনেক কিছু জেনেছিস। করোনা মারাত্মক ছোঁয়াচে একটি রোগ। আমাদের সকল কাজেই হাত ব্যবহার করতে হয়। তাই সবসময়ই হাত পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। বাসায় অবস্থানকালে প্রতি বিশ মিনিট পরপর জীবাণুনাশক সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। বাসার বাইরে গেলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। বিশেষত, টাকা স্পর্শ করলে, গণপরিবহণ ব্যবহার করলে বা অন্য ব্যক্তির স্পর্শ করা কিছু স্পর্শ করলে অবশ্যই হাত পরিষ্কার করে ফেলতে হবে। অপরিচ্ছন্ন হাতে নাকে-মুখে স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকবি। 

পরাগ 

বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি

৫. অনলাইন ক্লাসের সময়সূচির কথা জানিয়ে বন্ধুকে একটি ই-মেইল লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:অনলাইন ক্লাসের সময়সূচি।  

Text: 

সাজিদ, 

স্যার আমাকে অনলাইনে ক্লাসের সময়সূচি জানিয়েছেন। স্যার জানিয়েছেন, অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে এই শিক্ষাবর্ষে যেন আমরা পিছিয়ে না পড়ি এবং আসন্ন পরীক্ষায় যেন ভালো ফলাফল করতে পারি এটাই স্যারের মূল লক্ষ্য। 

শনি, সোম, বুধবার সকাল ০৯.৩০-১১.০০ টা পর্যন্ত। 

রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার ১১.৩০-১.০০ টা পর্যন্ত। 

জিসা 

৬. করোনাকালীন তোমার পাঠ পরিকল্পনার কথা জানিয়ে বন্ধুকে একটি ই-মেইল লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:করোনাকালীন পাঠ-পরিকল্পনা।  

Text: 

তামান্না, 

তুই আমার করোনাকালীন পাঠ-পরিকল্পনা জানতে চেয়েছিস। আমি সকল বিষয়েই মনোযোগ দিচ্ছি। তবে হিসাববিজ্ঞানে একটু বেশি মনোযোগ দিচ্ছি। তাছাড়া, বড় ভাইয়ার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বাংলা ও ইংরেজিতে বেশ ভালো করে প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমার পাঠ-পরিকল্পনা নিচে উল্লেখ করলাম— — বাংলা, হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা। 

সকাল 

৭. মনে করো, তুমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে চাও। উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর একটি ই-মেইল লেখো।

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:ভর্তিপ্রক্রিয়া প্রসঙ্গে। 

Text: 

জনাব, 

আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিচ্ছু একজন শিক্ষার্থী। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রক্রিয়া সম্পর্কে আমার স্পষ্ট ধারণা না থাকায় নানা ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছি । তাই ভর্তির তথ্যসমূহ পেলে আমি উপকৃত হব। 

ধন্যবাদসহ 

লেমিন 

৮. করোনাভাইরাসের কারণে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা বন্ধুকে উপদেশ দিয়ে একটি ই-মেইল লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:কোয়ারেন্টিনে থাকা প্রসঙ্গে। 

Text: 

রফিক, 

শুনলাম তুই গত তিনদিন ধরে হোম কোয়ারেন্টিনে আছিস। সম্প্রতি বিদেশ থেকে আসায় তোকে নাকি হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়েছে জানিস তো, বর্তমানে বিশ্বে করোনাভাইরাসের কী প্রকোপ চলছে। এ অবস্থায় আমাদের সকলেরই সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। বাসায় একা একা আলাদা থাকতে গিয়ে তুই কী অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছিস তা ভেবে আমার কষ্ট হচ্ছে।

তবুও কষ্ট করে নিজেকে মানিয়ে নিস। হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার সময় ভুলেও যেন কেউ তোর সান্নিধ্যে না আসে সেদিকে খেয়াল রাখিস। জানিস তো করোনাভাইরাস একটি মারাত্মক ছোঁয়াচে রোগ। আর এই ভাইরাস কারো শরীরে থাকলে চৌদ্দ দিনের মধ্যে তা প্রকাশ পায়। আপাতত কোনো লক্ষণ প্রকাশ না পেলেও তোকে চৌদ্দ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে নিয়ম মেনে চলতে হবে। এ সময় একাকিত্ব থেকে মুক্তির জন্য তুই ভালো কিছু বই পড়ে সময় কাটাতে পারিস। এছাড়া যে কোনো প্রয়োজনে আমাকে জানাস। আশা করি দ্রুতই আমাদের মাঝে ফিরে আসবি এই কামনায় শেষ করলাম। 

বিল্লাল 

বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি

৯. তোমার বোনের বিয়েতে নিমন্ত্রণ জানিয়ে বন্ধুকে ই-মেইল প্রেরণ করো।

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:বোনের বিয়েতে নিমন্ত্রণ প্রসঙ্গে। 

Text: 

প্রিয় শাদাত, 

কেমন আছ? অনেক দিন হলো তোমার খবর জানি না। আমি ভালো আছি। তুমি জেনে আনন্দিত হবে যে, আমার বোন নীলার আগামী ৪ নভেম্বর ২০২২, রোজ শুক্রবার শুভ বিবাহ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তুমি আরও খুশি হবে যে, পাত্র কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। বিয়ের সব আয়োজন আমাকেই করতে হচ্ছে। তুমি অবশ্যই আসবে। তুমি এলে খুব মজা হবে। 

ভালো থেকো, সুস্থ থেকো। 

পারভেজ 

১০. ইন্টারনেট ব্যবহারের সুফল ও কুফল সম্পর্কে পরামর্শ জানিয়ে ছোটভাইকে একটি বৈদ্যুতিন চিঠি লেখো। বা, মনে করো, তোমার নাম সোহানুর রহমান। তোমার ছোটভাইয়ের নাম ইকবাল হোসেন। এখন ইন্টারনেট ব্যবহারের সুফল ও কুফল সম্পর্কে পরামর্শ জানিয়ে ছোটভাইকে একটি ই-মেইল পাঠাও। 
From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:ইন্টারনেট ব্যবহারের সুফল ও কুফল। 

Text: 

প্রিয় সাব্বির, 

তোমার ই-মেইল পেয়ে জানতে পারলাম, তুমি ইন্টারনেট ব্যবহার করছ। জেনে খুশি হলাম। 

আধুনিক যুগে ইন্টারনেট একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ইন্টারনেটে পত্রিকা পড়া যায়। সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সহজেই খুঁজে বের 

| করা যায়। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ঢুকে দেশ-বিদেশের নানা খবর ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা যায়। গান শোনা, সিনেমা দেখা ইত্যাদি বিনোদনের কাজেও ব্যবহার করা যায় ইন্টারনেটকে। এছাড়া ই-মেইল, ফেইসবুক, ভাইবার, স্কাইপি প্রভৃতি ব্যবহার করে অতি সহজেই মানুষের সাথে যোগাযোগ করা যায়। 

তবে এটি ব্যবহারে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। কেননা, এর কিছু নেতিবাচক দিকও রয়েছে। যেমন, অতিমাত্রায় ইন্টারনেট ব্যবহারের ফলে আসক্তি তৈরি হয়, পড়াশোনার ক্ষতি হয়। পাশাপাশি, কিছু মানুষ তাদের খারাপ কাজের মাধ্যম হিসেবে ইন্টারনেটকে ব্যবহার করে থাকে, যা এক ধরনের অপরাধ। তাই সবসময় সতর্ক থেকে ইতিবাচক কাজে ব্যবহার করবে এটিকে। 

তোমার বড় ভাই 

বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি

১১. তোমার দেখা বাংলাদেশের কোনো একটি গ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের বর্ণনা দিয়ে প্রবাসী বন্ধুকে একটি ই-মেইল পাঠাও।

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:ইন্টারনেট ব্যবহারের সুফল ও কুফল। 

Text: 

জ্যাক, 

বাংলাদেশের এক প্রত্যন্ত অঞ্চলে আমার দাদুবাড়ি। এ গ্রামের সৌন্দর্য বর্ণনাতীত। গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে চলা নদী, সারি সারি সবুজ গাছের বন চোখ জুড়ায়। দূষণমুক্ত বাতাস, ভেজালমুক্ত খাদ্য আর সরল মনের মানুষেরা গ্রামকে আরও বিশুদ্ধতা দিয়েছে। সকালের নরম রোদে গ্রামের মেঠোপথ ধরে অনেক দূর হেঁটে যাওয়া, সুস্বাদু নানারকম পিঠা খাওয়া, ধানখেতে বিকেলের রোদে আলোছায়ার খেলা মনকে প্রশান্তি এনে দেয়। তুমি বাংলাদেশে এলে অবশ্যই তোমাকে আমাদের দাদুবাড়ি বেড়াতে নিয়ে যাব। 

আহাদ 

১২. মোবাইল ফোন অপব্যবহারের ক্ষতিগুলো উল্লেখ করে বন্ধুদের প্রেরণের জন্য একটি ই-মেইল রচনা করো।

বা, মোবাইল ফোনের অপব্যবহারের ক্ষতিকর দিকগুলো উল্লেখ করে তোমার বন্ধুকে একটি বৈদ্যুতিন চিঠি লেখো। 

From:[email protected]
To:[email protected]
Cc:
Subject:মোবাইল ফোনের অপব্যবহার। 

Text: 

বন্ধুরা, 

আজ এক সেমিনারে মোবাইল ফোন অপব্যবহারের কুফল সম্পর্কে জেনে এলাম। অত্যধিক মোবাইল ফোন ব্যবহার আমাদের শরীর ও মনে বিরূপ প্রভাব ফেলে। অধিক সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যয় করে, গেইম খেলে, মোবাইল ফোনে বেশিক্ষণ কথা বলে আমরা আমাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে ফেলছি। আমরা খেলাধুলা না করে, বই না পড়ে, মোবাইলে অধিক সময় ব্যয় করছি যা আমাদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে বাধা সৃষ্টি করছে। মোবাইল ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ আমাদের ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা নষ্ট করছে। তাই বন্ধুরা তোমরা মোবাইল ফোনের অতিরিক্ত 

ব্যবহার থেকে বিরত থাকো।

গোলাম রব্বানী 

এই বাংলায় ই-মেইল বা বৈদ্যুতিন চিঠি ছাড়া আরো পড়ুন

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply